তথাকথিত আহলে হাদীসদের কিছু মিথ্যা ও প্রতারণা

তথাকথিত আহলে হাদীসদের কিছু মিথ্যা ও প্রতারণা

গাইরে মুকাল্লিদ তথাকথিত আহলে হাদীসদের কাছে নামাযে সীনার উপর হাত বাঁধার দলীল হিসেবে না কোন সহীহ হাদীস আছে, না ইসলামের স্বর্ণ যুগে (সাহাবায়ে কেরাম, তাবেঈন, তবে তাবেঈনের) নামায সীনার উপর হাত বাঁধার কোন বাস্তব আমল দলীল হিসেবে আছে। তাদের কাছে কিছু প্রতারণামূলক মিথ্যা কথা ছাড়া কিছুই নেই।

الا لعنۃ اللہ علی الکذبین

শোন মিথ্যুকদের উপর আল্লাহ অভিশাপ।

নিচে তাদের মিথ্যার বেশাতি ক্রমিক নাম্বার দিয়ে হাওয়াল বা সূত্রসহ ধরিয়ে দেওয়া হল।

মিথ্যা নং ১। সীনার উপর হাত বাধার হাদীস ……. বুখারী ও মুসলিমে অনেক আছে। (ফতাওয়ায়ে সানাইয়্যা ১/৪৪৩)

মিথ্যা নং ২।  সীনার উপর হাত বাধার হাদীস সহীহ। (বুলুগুল মুরাম ফতাওয়ায়ে সানাইয়্যা পৃষ্ঠা ৫, ৫৯৩।

মিথ্যা নং ৩। সীনার উপর হাত বাধার হাদীস সহীহে ইবনে খুযাইমাতে আছে। ইবনে খুযাইমা এই হাদীসকে সহীহ বলেছেন। (সানাইয়্যা ১/৪৫৭, দালায়েলে মুহাম্মদী ২/১১০)

মিথ্যা নং ৪। ইমাম আহমদ কুবাইসা হতে তিনি তার পিতা হতে বর্ণনা করেন যে, নবী (সা.) নামাযে সীনার উপর হাত বাঁধতেন।

হাদীসটি হাসান। সহীহ বুখারীতেও এরূপ একটি হাদীস আছে। (আল্লাহ ভাল জানেন, সানাইয়্যা ১/৪৫৭)

মিথ্যা নং ৫। আবু দাউদে তাউস থেকে মারফুহ হিসেবে বর্ণিত সীনের উপর হাত বাঁধা।(মুকাম্মাল নামায, আব্দুল ওয়াহহাব ৪৪৯)

মিথ্যা নং ৬। সীনার উপর হাত বাধা হাদীস বিশারদ ইমামগনের ঐকমত্বের ভিত্তিতে সহীহ। (শরহে বেকায়া ৯৩, হাকীকাতুল ফিকহ ২৫০, ইউসুফ জে পুরী)

মিথ্যা নং ৭। নাভীর নিচে হাত বাঁধার হাদীস নেই, তা আলী (রা.) এর কথা। (শরহে বেকায়া ৯৩, হাক্বীকাতুল ফিকহ ২৫০)

মিথ্যা নং ৮। হযরত মিরজা মুযহার জান জানা মুজাদ্দেদী হানফী (রহ.) সীনার ‍উপর হাত বাঁধার হাদীস শক্তিশালী হওয়ার কারণে প্রাধান্য দিতেন এবং তিনি সে মতে সীনার উপর হাত বাঁধতেন। (মুকাদ্দামায়ে হেদায়া ১/১১১, হাকীকতুল ফিকহ ১/২৫১)

মিথ্যা নং ৯। নাভীর নিচে হাত বাঁধার হাদীসগুলো মুহাদ্দিসগণের ঐক্যমতে জয়ীফ। (হেদায়া ১/৩৫০, হাকীকতুল ফিকহ ২৫০)

মিথ্যা নং ১০। ইখতিলাফে উম্মত কা আলমিয়া কিতাবে ৯৬পৃষ্ঠায় এই মিথ্যা কথাটি আছে।

মিথ্যা নং ১১। খালেদ গিরজা এর “সালাতুন্নবী” ১৫৭ পৃষ্ঠায় এই মিথ্যা কথা বর্ণিত আছে।

মিথ্যা নং ১২। বনু আব্বাসের খলীফা হারুনের নামাযে কোমরে দড়ি খুলে গেছে, তিনি সীনা থেকে হাত নিচে নামিয়ে উক্ত দড়ি ধরলেন। মুক্তাদীগণ অবাক হয়ে এই অবস্থা অবলোকন করলেন। কাজী আবু ইউসুফ ফতওয়া দিলেন যে, নাভীর নিচে হাত বাঁধাই সঠিক। (হেদায়া বাবুসসালাত, ইখতিলাফে ‍উম্মতকা আলমিয়া ৭৮)

মিথ্যা নং ১৩। ইবনে মসউদের বর্ণনা নাভীর নীচে বাধা অত্যন্ত জয়ীফ।“মায়নে রাহে হেদায়াত কেয়সে পাঈ পৃষ্ঠা ১৮, আবু নূমান বশীর আহমদ। অথচ ইবনে মসঊদ থেকে কোন কথাই বর্ণিত নেই।

মিথ্যা নং ১৪। কুররাতুল আয়নাইনে নূর হুসাইন গরজাকী ওয়ায়েল ইবনে হাজরের হাদীস বর্ণনা করে এগারোটি কিতাবের রেফারেন্স দিয়েছেন। অথচ সেগুলোর একটি থেকেও সীনার উপর হাত বাঁধা সাব্যস্ত হয় না। পৃষ্ঠা ১৯)

মিথ্যা নং ১৫। মুসলিম শরীফের সনদ ইবনে খুজাইমার ইবারতের সাথে মিলিয়ে দিয়েছে।  (ফতাওয়ায়ে সানাইয়্যা ১/৪৪৪)

মিথ্যা নং ১৬। হযরত হালবের বর্ণনায় ھذہ  শব্দকে یدہ বানিয়ে বিকৃত করেছে।(দ্বীনুল হক দাউদ আরশাদ পৃষ্ঠা ২১৭। মূল শব্দ এভাবে ویضع ھذہ علی صدرہ (মাসনাদে আহমদ ৫/৬২২)

মিথ্যা নং ১৭। আমি নবী করীম (সা.)কে দেখেছি….সীনার উপর হাত রাখতেন। (আল্লামা তিরমিযী, নমবী হানাফী এটির সনদকে হাসান বলে স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে। (দ্বীনুল হক ২১৮) অথচ ইমাম তিরমিযী (রহ.) সীনার উপর হাত বাধার কথাই বর্ণনা করেননি। আল্লামা নমবী তা বর্ণনা করে সীনা শব্দকে অরক্ষিত বলেছেন। (আসারুসসুনান ৮৬)

মিথ্যা নং ১৮। তিন বস্তু নবী করীম (সা.) স্বভাজাত বিষয় ছিল। এই বর্ণনাটি আলী (রা.) এর বর্ণনা নয়। (দ্বীনুল হক ২২২)

মিথ্যা নং ১৯। তারপর সীনার উপর হাত বেধে দুআ পড়লেন। (তিরমিযী ১/১১৯) (সালাতুল মুসতফা মুহাম্মদ আলী জাঁবাজ ২৭৪)

মিথ্যা নং ২০। ওয়ায়েল ইবনে হাজরের যে বর্ণনা ইবনে খুযাইমাতে আছে তা ইবনে হাজর (রহ.) সঠিক বলেছেন। (ফতহুল বারী) (বারা মাসাল, কলীম আব্দুর রহমান খলীক ৫৩)

মিথ্যা নং ২১। হযরত আলী (রা.) এর হাদীস وضع الایدی علی الاید الخ এই রেওয়ায়াত আবুদাউদের ইবনে আরবী কর্তৃক সংলিত কপি ছাড়া অন্য কোন কপিতে পাওয়া যায় না। (কিতাব ওয়া সুন্নাত কে মুতাবেক নামায, অনুবাদ ডা. খালেদ জফরুল্লাহ পৃষ্ঠা ৫৯) অথচ তা ইবনে দাসা কর্তৃক সংকলিত কপিতেও আছে। আদিল্লায়ে কামেলা।

মিথ্যা নং ২২। অবাক কাণ্ড মাওলানা হাবীবুর রহমান আজমীও শুধু নিজের মাযহাবের সমর্থনে অতিরিক্ত এই শব্দকে সংযুক্ত করেছেন। تحت السرۃ  যেমন আমুসান্নাফ মাকতাবায়ে এমদাদিয়ার প্রকাশনায় আছে। (এরশাদুল হক ২২৯, মাওলানা সরফরা আহমদ আপনি তসানীফকে আয়নে মে। অথচ আমুসান্নাফ ২/৩৫১ এর تحت السرۃ শব্দটি নেই।

মিথ্যা নং ২৩। وانحر তাফসীরে হযরত আলী (রা.) হতে বর্ণিত আছে যে, তা থেকে উদ্দশ্য সীনার উপর হাত বাধা। বাম হাতের ডান হাত রাখা। তা ইমাম হাকেম বর্ণনা করেছেন এবং হাসন বলেছেন। (দলায়েলে মুহা্ম্মদী পৃষ্ঠা ২/১১১) অথচ হাসান বলেননি।

http://www.ahnafforum.com/f49/1601%3B-1585%3B-1602%3B-1729%3B-1580%3B-1583%3B-1740%3B-1583%3B-1606%3B-1575%3B-1605%3B-1606%3B-1729%3B-1575%3B-1583%3B-1575%3B-1729%3B-1604%3B-1581%3B-1583%3B-1740%3B-1579%3B-1705%3B-1746%3B-1580%3B-1726%3B-1608%3B-1657%3B-257/

 

 

 

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s